প্রথম পাতা > ইতিহাস, বাংলাদেশ, শিল্প, সংস্কৃতি > বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন

বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন

bd-folklore-crafts-fdnমিজানুর রহমান মামুন, সোনারগাঁ: দেশের লোকজ জিনিসপত্রের অন্যতম সংগ্রহশালা বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশন। পাশ্চাত্ত্য শিল্পকলার মাঝে এ দেশের শিল্পসংস্কৃতিকে টিকিয়ে রাখতে ১৯৭৫ সালের ১২ মার্চ সরকারের সহযোগিতায় নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ের পানাম নগরে অস্থায়ীভাবে এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলেন শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন। ১৯৮১ সালে এই প্রতিষ্ঠানটি স্থানান্তর করা হয় পানাম নগরের কাছেই বড় সর্দার বাড়িতে।

১৯৯৮ সালের ৬ মে এই প্রতিষ্ঠানটি সরকারি গেজেটে স্থান পায়। পর্যায়ক্রমে ফাউন্ডেশনে (সোনারগাঁ জাদুঘর) দর্শনার্থীদের জন্য বিভিন্ন গ্যালারি স্থাপন করা হয়। প্রতিটি গ্যালারিতে দুর্লভ সব ঐতিহ্যের বিভিন্ন নিদর্শন সংরক্ষিত আছে। গ্যালারিগুলো হলনিপুণ কাঠ খোদাই গ্যালারি, গ্রামীণ জীবন, পটচিত্র, মুখোশ, নৌকার মডেল, উপজাতি, লোকজ বাদ্যযন্ত্র ও পোড়ামাটির নিদর্শন, তামা, কাঁসা, পিতলের তৈজসপত্র, লোকজ অলঙ্কার, বাঁশ, বেত, শীতল পাটি ও বিশেষ প্রদর্শনী গ্যালারি। এসব গ্যালারি ছাড়াও ১৯৯৬ সালের অক্টোবর মাসে ফাউন্ডেশনে আরও নতুন গ্যালারি যোগ করা হয়। ওই গ্যালারির প্রথমটিতে কাঠের তৈরি প্রাচীন ও আধুনিককালের নিদর্শন দ্রব্যাদি দিয়ে সাজানো হয়। দ্বিতীয়টিতে সোনারগাঁয়ের ঐতিহ্যবাহী জামদানি শাড়িসহ বাংলাদেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে সংগ্রহ করা নকশিকাঁথা প্রদর্শনের পাশাপাশি প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্যের বস্ত্র তৈরির প্রক্রিয়া প্রদর্শন করা হয়েছে। তবে বড় সরদার বাড়ির রেস্টোরেশন কাজ চলায় তিনটি গ্যালারি ব্যতীত বাকি সব গ্যালারি সাময়িকভাবে বন্ধ রয়েছে। রেস্টোরেশন কাজ শেষ হলে এ গ্যালারিগুলো আরও চমকপ্রদভাবে দর্শনার্থীদের সামনে উন্মুক্ত করা হবে বলে জানায় কর্তৃপক্ষ।

ফাউন্ডেশন চত্বরে রয়েছে ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের আদলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য, যা এই ফাউন্ডেশনে নতুন মাত্রা যোগ করেছে। রয়েছে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনের আবক্ষ ভাস্কর্য, শেখ রাসেল ভাস্কর্য, দু’জন অশ্বারোহী, দৃষ্টিনন্দন লেক, গরুর গাড়ির ভাস্কর্য, বাঘ, কুমির ও হাতির ভাস্কর্য। রয়েছে কারুশিল্প গ্রাম উন্নয়ন প্রকল্প, লাইব্রেরি ও ডকুমেন্টেশন সেন্টার এবং ময়ূরপঙ্খী মঞ্চ।

কবি রবীন্দ্র গোপ পরিচালক পদে যোগদানের পর ফাউন্ডেশনের উল্লেখযোগ্য দৃষ্টিনন্দন নিদর্শনগুলো যোগ হয়েছে।ফাউন্ডেশনের লক্ষ্য ও উদ্দেশ্য বাস্তবায়নে তিনি কাজ করে যাচ্ছেন বলে জানালেন ফাউন্ডেশনের কর্মকর্তারা।

এ ব্যাপারে বাংলাদেশ লোক ও কারুশিল্প ফাউন্ডেশনের পরিচালক কবি রবীন্দ্র গোপ জানান, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আর্থিক অনুদান ও সার্বিক সহযোগিতায় এটি প্রতিষ্ঠা পেয়েছে। ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যউদ্দেশ্য বাস্তবায়নে তিনি সর্বশক্তি দিয়ে কাজ করে যাবেন।

ফাউন্ডেশন বুধবার ও বৃহস্পতিবার ছাড়া সপ্তাহের বাকি দিনগুলোতে সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে। প্রবেশ ফি ২০ টাকা। এ ছাড়া ফাউন্ডেশনের দৃষ্টিনন্দন লেকে নৌকায় বেড়ানো, চড়কিতে চড়ার সুযোগ রয়েছে। তবে আলাদা টিকেটের বিনিময়ে এসব উপভোগ করতে পারবেন।

Advertisements
  1. কোন মন্তব্য নেই এখনও
  1. No trackbacks yet.

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: